সারিয়াকান্দিতে বিএনপির ১৭ নেতাকর্মীর নামে মামলা

প্রকাশিত: নভেম্বর ২৫, ২০২২, ০৮:৩৬ রাত
আপডেট: নভেম্বর ২৫, ২০২২, ০৮:৩৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

সারিয়াকান্দি বগুড়া সংবাদদাতা: গত বৃহস্পতিবার (২৪ নভেম্বর) রাতে সারিয়াকান্দিতে পৃথক ঘটনায় ২ টি ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনায় উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাধারণ সম্পাদকসহ ১৭ নেতাকর্মির বিরুদ্ধে মামলা করা হয়েছে। এ মামলায় অজ্ঞাত আসামীও রয়েছে। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ককটেলের অংশবিশেষ এবং ৩ টি তাজা ককটেল উদ্ধার করেছে।

সারিয়াকান্দি থানার মামলা সূত্রে জানা গেছে, পুলিশ গোপন সংবাদর ভিত্তিতে জানতে পারে যে বৃহস্পতিবার রাত ৮ টায় হাটফুলবাড়ি ইউনিয়নের কাটাখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে উপজেলা বিএনপির নবগঠিত কার্যনির্বাহী কমিটির সদস্য আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে বিএনপি ও তার অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতাকর্মিরা বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ে সংঘবদ্ধ হচ্ছ্ েপরে সারিয়াকান্দি থানার পুলিশ সেখানে উপস্থিত হয়।

এসময় তখন নেতাকর্মিরা ১ টি ককটেল বিস্ফোরণ ঘটায় এবং সারিয়াকান্দি থানা পুলিশের উপর হামলা চালায়। এতে এস আই কামরুল হাসান এবং আব্দুস সামাদ আহত হন। পরে সেখানে অতিরিক্ত পুলিশ পাঠিয়ে নেতাকর্মিদের ছত্রভঙ্গ করে দেয়া হয়। ঘটনাস্থল হতে ১ টি বিস্ফোরিত ককটেলের অংশ বিশেষ এবং ২ টি অবিস্ফোরিত তাজা ককটেল উদ্ধার করা হয়। পরে নেতাকর্মিরা রাত সাড়ে ৯ টায় সারিয়াকান্দি পৌর এলাকার সাহা পাড়া ৩ মাথা মোড়ে আরও ১ টি ককটেলের বিস্ফোরণ ঘটায়। সেখানে পুলিশ উপস্থিত হয়ে বিস্ফোরিত ককটেলের অংশ বিশেষসহ আরও ১ টি তাজা ককটেল উদ্ধার করেছে।

এ বিষয়ে উপজেলা বিএনপির অজ্ঞাতনামা ১৭ জনকে আসামি করে সারিয়াকান্দি থানার এস আই হোসেন বাদী হয়ে একটি নাশকতা মামলা দায়ের করেন। এ বিষয়ে আলহাজ্ব কাজী রফিকুল ইসলাম জানান, আমি ঢাকায় অবস্থান করছেন। এ বিষয়ে তিনি কিছুই জানেন না। সারিয়াকান্দি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রাজেশ কুমার চক্রবর্তী বলেন, অজ্ঞাতনামা আসামীদের গ্রেফতার করে আইনের আওতায় নিয়ে আসতে অভিযান অব্যাহত আছে।

 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়