ধুনটে স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতাহানীর ভিডিও ভাইরাল 

প্রকাশিত: নভেম্বর ১৭, ২০২২, ০৩:১২ দুপুর
আপডেট: নভেম্বর ১৮, ২০২২, ১০:৪২ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি : বগুড়ার ধুনট উপজেলায় প্রেমে সাড়া না পেয়ে এক স্কুলছাত্রীকে শ্লীলতাহানউ ঘটিয়ে ওই দৃশ্য মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করে ফেসবুকে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে একই বিদ্যালয়ের এক ছাত্রের বিরুদ্ধে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন। আজ বৃহস্পতিবার মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ও ধুনট থানার উপ-পরিদর্শক জাহাঙ্গীর আলম এ তথ্য নিশ্চিত করেন। ওই স্কুলছাত্রীকে জড়িয়ে ধরে বিভিন্ন কায়দায় শ্লীলতাহানী ঘটানোর ২ মিনিট ৪১ সেকেন্ডের একটি ভিডিও গণমাধ্যমের হাতে এসেছে। ঘটনার পর থেকে ওই ছাত্র পলাতক রয়েছে। 

মামলা সূত্রে জানা যায়, উপজেলার কাশিয়াহাটা গ্রামের এক দিনমজুরের মেয়ে (১৫) স্থানীয় এমপিএসটি উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। ওই ছাত্রীকে প্রেম প্রস্তাব দেয় প্রতিবেশী ভ্যানচালক আলমগীর হোসেনের ছেলে একই বিদ্যালয়ের ১০ম শ্রেণির ছাত্র মুন্না মিয়া (১৬)। কিন্তু প্রেমে সাড়া না পেয়ে স্কুলছাত্রীর ওপর ক্ষুব্ধ হয়ে ওঠে মুন্না। এ অবস্থায় ৮ নভেম্বর বিকেল ৪টার দিকে মুন্নার বাড়ির পাশের রাস্তা দিয়ে স্কুল থেকে নিজের বাড়িতে ফিরছিল ওই ছাত্রী। এ সময় স্কুলছাত্রীকে কৌশলে নিজের বাড়িতে ডেকে নেয় মুন্না। এক পর্যায়ে টিনের তৈরি বাথরুমে নিয়ে গিয়ে প্রেম নিবেদনের নামে মুন্না ওই ছাত্রীকে শ্লীলতাহানী করে। এ সময় মুন্নার দুই বন্ধু বাথরুমের ভাঙা বেড়ার ফুটো দিয়ে ওই শ্লীলতাহানীর দৃশ্য কৌশলে মুঠোফোনে ভিডিও ধারণ করে। 

এ ঘটনার ২৪ ঘন্টা পর ২ মিনিট ৪১ সেকেন্ডের সেই ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ (ফেসবুক) মাধ্যমে ছড়িয়ে দেয় মুন্না ও তার দুই বন্ধু। শ্লীলতাহানীর ভিডিও অনেকের হাত ঘুরে মুঠোফোনে ভাইরাল হয়ে পড়ে। প্রতিবেশীদের মাধ্যমে জানার পর এ ঘটনায় স্কুলছাত্রীর বাবা বাদি হয়ে মঙ্গলবার রাতে মুন্না মিয়ার বিরুদ্ধে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছে। বুধবার বগুড়া আদালতে ২২ ধারায় ওই স্কুলছাত্রীর জবানবন্দি রেকর্ড করা হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়