হরিজন সম্প্রদায়ের চাকরি স্থায়ীকরণসহ ৭ দাবি

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২, ০১:৪৭ দুপুর
আপডেট: সেপ্টেম্বর ২৩, ২০২২, ০১:৪৭ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

সিটি করপোরেশন, পৌরসভায় কর্মরত হরিজন সম্প্রদায়ের পরিচ্ছন্নতাকর্মীদের চাকরি স্থায়ীকরণ ও বেতন বৃদ্ধিসহ ৭ দফা দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ হরিজন ঐক্য পরিষদ। শুক্রবার (২৩ সেপ্টেম্বর) জাতীয় প্রেস ক্লাবে তফাজ্জল হোসেন মানিক মিয়া হলে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এসব দাবি করা হয়।

হরিজন ঐক্য পরিষদের অনান্য দাবিগুলো হলো - 

সরকারি-বেসরকারি স্কুল-কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল উচ্চ শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে হরিজনদের জন্য ভর্তি কোটা সংরক্ষণ করতে হবে। সরকারি চাকরিতেও কোটা দিতে হবে। হরিজনদের খাসজমি বন্দোবস্ত দিয়ে নিজস্ব আবাসনের ব্যবস্থা করা, বৈষম্য বন্ধে সংসদে  বৈষম্য নিরোধ আইন পাশ করাসহ হরিজন কল্যাণ ট্রাস্ট গঠন করতে হবে।  

এছাড়াও সকল স্থানীয় সরকারসহ বাংলাদেশ জাতীয় সংসদে হরিজনদের জন্য আসন সংরক্ষণ করতে হবে। ফুটবল, ক্রিকেট ও অলিম্পক গেইমে যোগ্যতানুযানী অংশগ্রহণে সুযোগ সৃষ্টিতে প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করাতে হবে।

সংবাদ সম্মেলনে আয়োজকরা বলেন, হরিজন সম্প্রদায় সিটি করপোরেশন, পৌরসভার প্রথম কর্মচারী হলেও আমাদের চাকরি আজও অস্থায়ী। তাই আমাদের দাবিগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে এবং ২০তম গ্রেডের পরিচ্ছন্নতাকর্মী পদের পদন্নতি দিতে হবে।  

তারা বলেন, আমাদের বেতন কাঠামো এক হাজার দুইশত টাকা হতে ছয় হাজার টাকা যা একটি পরিবার কোনো ভাবেই চলতে পারে না। বর্তমান বাজারের মূল্য বিবেচনা করে পরিচ্ছন্নতাকর্মীর বেতন ১৫ হাজার টাকা এবং সিটি করপোরেশনগুলোতে সর্বনিম্ন ২২ হাজার টাকা দিতে হবে।  

সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রোবায়েত ফেরদৌস। তিনি বলেন, বাংলাদেশে বসবাসরত এক বিশাল জনগোষ্ঠী যারা হরিজন নামে পরিচিত, তারা  পেশাগত কারণে সামাজিক ও রাষ্ট্রীয়ভাবে বৈষম্য ও বঞ্চনার শিকার। অথচ তারা আমাদের সেবা দিয়ে আসছেন।  

সংবাদ সম্মেলন উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের মহাসচিব নির্মণ চন্দ্র দাস ও সভাপতি কৃষ্ণলাল।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়