`ও চোখে চোখ পড়েছে যখনই....'

অভিমান ভুলে জয় হলো ভালোবাসার

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২, ১০:১০ রাত
আপডেট: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২, ১০:১০ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

মাসুদুর রহমান রানা: মহা ধুমধামে দিনাজপুরের মোসলেমা বেগমের বিয়ে হয় ১৫ বছর আগে। বিয়ের প্রথম দিকে পরিবারে সুখ থাকলেও পরে তা বিষাদে পরিণত হয়। ফিকে হয়ে যায় স্বপ্ন। ১৫ বছরেও যখন তিনি মা হতে পারছিলেননা তখন তার চারদিকে নেমে আসে ঘোরতর অন্ধকার। কাছের মানুষগুলো দূরে চলে যায়। ভালবাসার মানুষ স্বামী তাকে শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু করে। শ্বশুর বাড়ির লোকজনও লাঞ্চনা-গঞ্জনা দেয়। প্রতিবেশীরা কানাঘুষা করতে থাকে। এ পরিস্থিতি আর সহ্য করতে না পেরে যে দিকে যায় দু’চোখ সেদিকেই চলে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

এ অবস্থায় গত সোমবার বাড়ি থেকে বের হয়ে যান তিনি। দিনাজপুর বাস টার্মিনালে গিয়ে তিনি একটি বাসে চেপে বগুড়া চারমাথায় নেমে পড়েন। কিন্তু সেখানে নেমে তিনি কিংকর্তব্যবিমুঢ় হয়ে পড়েন। অবশেষে বাস মালিক সমিতির লোকজন মোসলেমাকে এ অবস্থা দেখে বগুড়া সদর থানা নারী শিশু বয়স্ক ও প্রতিবন্ধী হেল্প ডেস্ক এর আশ্রয় নেওয়ার পরামর্শ দেন। এরপর তিনি সদর থানায় ওই ডেস্কে এসে ডেস্কের ইনচার্জ এসআই জীবন নেছার সাহায্য কামনা করেন। তিনি তাকে সমস্ত ঘটনা খুলে বলেন। এরপর এসআই জেবুন নেছা মোসলেমাকে তার স্বামীর ঘরে ফিরে নিয়ে যাওয়ার উদ্যোগ নেন। 


এসআই জীবন নেছা বলেন, বিষয়টি মিমাংশার জন্য তিনি তার স্বামী ও শ্বশুর বাড়ির লোকজন, জনপ্রতিনিধি এবং মেয়েটির বাড়ির লোকজনকে  মঙ্গলবার সদর থানায় ডেকে আনেন। তিনি সংসারটি টিকে রাখতে তার স্বামীকে কাউন্সিলিং করেন। তার স্ত্রীও স্বামীর কাছে ক্ষমা চান। তারা দু’জন একে অপরের দিকে কিছুক্ষণ চেয়ে থাকেন। আর এতেই বরফ গলে যায়। সব অভিমান ভুলে ভালবাসার জয় হয়। স্বামী তার স্ত্রী মোসলেমাকে নিয়ে নিজ বাড়িতে ফেরেন। এতে একটি সংসার ভাংগনের হাতে থেকে বেঁচে যায়।


এ বিষয়ে এসআই জেবুন নেছা আরও বলেন, আল্লাহ যা ইচ্ছা সৃষ্টি করেন, যাকে ইচ্ছা কন্যা এবং যাকে ইচ্ছা পুত্র সন্তান দান করেন। অথবা তাদের পুত্র-কন্যা উভয় দান করেন। সৃষ্টিকর্তা না চাইলে কারো পক্ষেই সন্তানের বাবা- মা হওয়া যায় না বা সম্ভব নয়। তিনি বলেন,সন্তান জন্মদানে অক্ষমতার জন্য স্বামী ও স্ত্রী সমানভাবে দায়ী। যদি স্বামী সন্তান জন্মদানে অক্ষম হয়, তবুও নারীটিকেই সমস্ত অত্যাচার সহ্য করে যেতে হয়।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়