অপহৃত মাদ্রাসা ছাত্রী এক মাস পর সীমান্ত থেকে উদ্ধার

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২, ০৯:১৮ রাত
আপডেট: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২, ০৯:১৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

লালমনিরহাট অফিস: লালমনিরহাটের আদিতমারী উপজেলায় অপহরণের প্রায় এক মাস পর ভারতীয় সীমান্ত থেকে এক মাদরাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় হায়দার আলী নামে এক যুবককে গ্রেফতার করা হয়েছে।

আজ বুধবার এ তথ্য নিশ্চিত করেন আদিতমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম। এর আগের দিন দিবাগত রাতে উপজেলার দুর্গাপুর ইউনিয়নের ভারতীয় সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম বানিয়াটারী কুটিরচর থেকে ওই কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতারকৃত যুবক ওই গ্রামের নবাব আলীর ছেলে।

পুলিশ ও স্থানীয়রা জানান, উপজেলার সারপুকুর ইউনিয়নের মধুপুর গ্রামের আব্দুল হকের ছেলে বাসু মিয়া (২২) তার এক প্রতিবেশীর মাদরাসায় ৭ম শ্রেণিতে পড়ুয়া মেয়ের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। এর এক পর্যায়ে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে গত ২২ আগস্ট সন্ধ্যার পরে তাকে নিজ বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে পালিয়ে যান বাসু মিয়া। সারাদিন বিভিন্ন স্থানে ঘুরে রাতে নিজ বাড়িতেই থাকতেন তিনি। মেয়েটির পরিবার বাসুকে নিজ বাড়িতে থাকতে দেখে সন্দেহ হলেও আইনি পদক্ষেপ নিতে পারেনি। বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করে মেয়ের সন্ধান না পেয়ে অবশেষে আদিতমারী থানায় সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করেন তার বাবা। তবে সন্দেহভাজন হিসেবে তিনি পুলিশকে বাসু মিয়ার নাম জানান। পরে থানা পুলিশ প্রযুক্তির সহায়তায় বাসু মিয়ার সঙ্গে নিখোঁজ কিশোরীর সখ্যতার প্রমাণ পায়। বিষয়টি বুঝতে পেয়ে বাসুর পরিবার কিশোরীকে ফিরিয়ে দিতে নানা টালবাহনা করে সময় ক্ষেপণ করেন। সেই সূত্র ধরে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এদিন রাতে ভারত সীমান্ত ঘেঁষা গ্রাম বানিয়াটারী কুটিরচরে অভিযান চালিয়ে হায়দার আলীর বাড়ি থেকে অপহৃত ফরজানাকে উদ্ধার করে পুলিশ। সেই সঙ্গে অপহরণে জড়িত থাকার দায়ে বাড়ির মালিক হায়দার আলীকে গ্রেফতার করে।

এ ঘটনায় রাতেই মেয়েটির বাবা বাদী হয়ে হায়দার আলী ও প্রেমিক বাসু মিয়াসহ কয়েকজনের নামে আদিতমারী থানায় মামলা করেছেন। ভিকটিমের মামা ইউপি সদস্য সাঈদ জানান, প্রেম ঘটিত হলে অন্য কোথাও রাখত। সীমান্তের খুব কাছের বাড়িতে রাখায় সন্দেহ হচ্ছে। সুযোগ মতো ভিকটিমকে ভারতে হয়তো পাচার করে দিত। কিন্তু পুলিশের অভিযানে সেই সুযোগ তারা পায়নি। বাসু মিয়ার বাবা চাচারা সবাই চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী। তাদের সঙ্গে ভারতীয় চোরা কারবারীদের সখ্যতা রয়েছে।

এবিষয়ে কথা হলে আদিতমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোক্তারুল ইসলাম বলেন, ভারতীয় সীমান্তবর্তী গ্রামের একটি বাড়ি থেকে অপহৃত মাদরাসা ছাত্রীকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ ঘটনায় বাড়ির মালিককে গ্রেফতারের পর মামলা দায়ের করা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে বাকি আসামিদের নাম প্রকাশ করা যাচ্ছে না। তবে তাদেরকেও গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়