কাউনিয়ায় দুর্বৃত্তের ছুরিকাঘাতে স্কুলছাত্রী খুন

প্রকাশিত: আগস্ট ১৭, ২০২২, ০৯:৫৮ রাত
আপডেট: আগস্ট ১৭, ২০২২, ০৯:৫৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

কাউনিয়া (রংপুর) প্রতিনিধি: রংপুরের কাউনিয়ায় দুর্বৃত্তের ধারালো ছুরিকাঘাতে সানজিদা আক্তার ইভা (১৬) নামে এক স্কুলছাত্রী খুন হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার রাতে উপজেলার হরিচরণ লস্কর গ্রামে কুটিরপাড়-মধুপুর সড়কের পাশ থেকে তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

সানজিদা আক্তার ইভা কাউনিয়া উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের গোড়াই গ্রামের ইব্রাহীম মিয়ার মেয়ে এবং বড়দরগাহ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণীর ছাত্রী। স্থানীয়রা ও থানা পুলিশ জানায়, মঙ্গলবার রাত সাড়ে নয়টার দিকে হরিচরণ লস্কর গ্রামে রাস্তার ধারে অজ্ঞাত মেয়েটিকে রক্তাক্ত অবস্থায়  ছটপট করতে দেখে স্থানীয় লোকজন। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মেয়েটিকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

কাউনিয়া থানার ইন্সপেক্টর তদন্ত সেলিমুর রহমান জানান, মেয়েটির গলা, বুক, পিঠ ও পাঁজারে ধারালো ছুরির একাধিক জখমের চিহ্ন রয়েছে। অতিরিক্ত রক্তক্ষরণের ফলে তার মৃত্যু হয়েছে। পরে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছবি দেখে হাসপাতালে ছুটে আসেন স্বজনরা।

মেয়েটির চাচা সোলেমান আলী জানান, মঙ্গলবার স্কুলে যাওয়ার জন্য বাড়ি থেকে বের হয় ইভা। এরপর আর বাড়ি ফেরেনি। রাত সাড়ে ১১টার দিকে ফেসবুক ওকাউনিয়া থানা পুলিশের মাধ্যমে খবর পেয়ে হাসপাতালে গিয়ে তার মরদেহ শনাক্ত করা হয়। তিনি বলেন, পাশের গ্রামের এক যুবক তার ভাতিজাকে স্কুল যাওয়া আসার পথে প্রেম নিবেদনসহ প্রায়ই উত্ত্যক্ত করত। প্রায় নয় মাস আগে ওই যুবককে তার ভাতিজাকে বিরক্ত না করার জন্য বলা হয়। হয়তো সে এতে ক্ষিপ্ত হয়ে এই হত্যাকাণ্ড ঘটাতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আজ দুপুরে ইভার বাড়িতে গিয়ে দেখে যায়, আদরের মেয়েকে হারিয়ে বারবার কান্নায় ভেঙে পড়ছেন ইভার মা। স্বজন ও প্রতিবেশীদের আহাজারিতে ভারী হয়ে ওঠে পুরো এলাকা। ইভার মা শাবানা বেগম বলেন, আমার বুক যে খালি করেছে তাদেরও যেন এভাবে বুক খালি হয়।

কাউনিয়া উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. মীর হোসেন জানান, হাসপাতালে আনার আগেই মেয়েটির মৃত্যু হয়েছে। কাউনিয়া থানার ওসি মোন্তাছের বিল্লাহ জানান, এ ঘটনায় আজ বুধবার মেয়েটির পিতা বাদি হয়ে মামলা করেছেন। হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটন সহ জড়িতদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

রংপুর জেলা পুলিশের সহকারী পুলিশ সুপার (সার্কেল-সি) আশরাফুল আলম পলাশ জানান, এ ঘটনায় সবদিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য একজনকে আটক করা হয়েছে। তদন্তের স্বার্থে আটক ব্যক্তির নাম প্রকাশ করা যাচ্ছে না। ময়নাতদন্তের জন্য ইভার মরদেহ রংপুর মেডিকেল কলেজের ফরেন্সিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়