বগুড়ার শাজাহানপুরে ড্রেন থেকে স্কুলছাত্রের ক্ষতবিক্ষত লা-শ উদ্ধার

প্রকাশিত: আগস্ট ০৯, ২০২২, ০৩:০২ দুপুর
আপডেট: আগস্ট ০৯, ২০২২, ০৩:১০ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

শাজাহানপুর (বগুড়া) প্রতিনিধি: বগুড়ার শাজাহানপুরে একটি কচুক্ষেত থেকে আজ মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে ফাহিম ফয়সাল (১৬) নামের এক স্কুলছাত্রের লা-শ উদ্ধার করেছে থানা পুলিশ। জেলা পুলিশের ঊর্ধতন কর্মকর্তারা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।

নি-হ-ত ফাহিম সাজাপুর ফকিরপাড়া গ্রামের শাহাদাত হোসেনের ছেলে এবং সুলতানগঞ্জ উচ্চ বিদ্যালয়ের দশম শ্রেণির ছাত্র। নি-হ-তের স্বজনরা জানিয়েছেন, স্থানীয় কয়েকজন কিশোর ও যুবকের সাথে পূর্বশত্রুতা ছিল ফাহিমের। পবিত্র আশুরা উপলক্ষ্যে গত সোমবার রাতে সাজাপুর ফুলতলা আহমদিয়া ফাজিল মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত মিলাদ শেষে রাত ১২টার দিকে বাড়ি ফিরে ফাহিম। রাত সাড়ে ১২টা পর্যন্ত নির্মাণাধীন বাড়ির ছাদে দাঁড়িয়ে সে মোবাইলে কথা বলছিল। একপর্যায়ে মোবাইলে ডেকে নিয়ে পূর্বশত্রুতার জের ধরে বাড়ি থেকে প্রায় ১ কিলোমিটার পশ্চিমে বানারশি এলাকায় একটি কচুক্ষেতে নিয়ে উপর্যুপরি অর্ধশতাধিক ছু-রি-কাঘাতে তাকে হ-ত্যা করে ড্রেনের মধ্যে ফেলে রেখে যায়।

এ সময় দুর্বৃত্তরা ফাহিমের শরীরের কাপড় খুলে ফেলে বুকের দুই পাশে ইংরেজি অক্ষর ‘এন’ এবং ‘এস’ লিখে রাখে। সেই সাথে ফাহিমের ব্যবহৃত একটি মোবাইল ফোন সেট তার শরীরের উপর রেখে যায়। আজ সকাল ৭টার দিকে ওই বানারশি এলাকার ফসলি জমিতে কাজ করতে গিয়ে স্থানীয়রা ফাহিমের লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেয়।

সংবাদ পেয়ে থানা পুলিশ সকাল ১১টার দিকে লা-শ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করে। প্রতিবেশিরা জানিয়েছেন, সোমবার রাতে ফুলতলা আহমদিয়া ফাজিল মাদ্রাসার মসজিদে আশুরা উপলক্ষ্যে আয়োজিত মিলাদ মাহফিলে রাত সাড়ে ১১টা পর্যন্ত ফাহিমকে দেখা গেছে।

লা-শ উদ্ধারের বিষয়টি নিশ্চিত করে শাজাহানপুর থানার ওসি আব্দুল্লাহ আল মামুন জানিয়েছেন, লা-শ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠানো হয়েছে। ঘটনার বিষয়ে পুলিশী তদন্ত শুরু হয়েছে। তদন্ত শেষে হ-ত্যাকান্ডের প্রকৃত কারণ সম্পর্কে জানা যাবে। 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়