মহাদেবপুরে ১৩ হাজার ১শ’ হেক্টর  জমিতে আউশ চাষ, বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা

প্রকাশিত: আগস্ট ০৬, ২০২২, ০২:৪৩ দুপুর
আপডেট: আগস্ট ০৬, ২০২২, ০২:৪৩ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

মহাদেবপুর (নওগাঁ) প্রতিনিধি : নওগাঁর মহাদেবপুর উপজেলায় চলতি রোপা আউশ মৌসুমে ১৩ হাজার ১শ’ হেক্টর জমিতে আউশ ধানের চাষ করা হয়েছে। চলতি বোরো মৌসুমে কৃষক ধানের উচ্চমূল্য পাওয়ায় আউশ ধান চাষে ঝুঁকে পরেছেন এ উপজেলার কৃষকরা। এ ধান চাষ করে কৃষকরা একই জমিতে বছরে তিন ফসল উৎপাদন করছে।  কৃষি বিভাগের ব্যাপক তৎপরতা এবং কৃষকদের মাঝে বিনামূল্যে প্রণোদনার সার, বীজ প্রদান করায় কৃষি ক্ষেত্রে এ পরিবর্তন আসতে শুরু করেছে। 
উপজেলা কৃষি অফিস সূত্রে জানা গেছে, চলতি মৌসুমে এ উপজেলায় ১৩ হাজার ১২০ হেক্টর জমিতে আউশ ধানের চাষ করা হয়েছে। আউশ ধান উৎপাদনের ক্ষেত্রে এ উপজেলা ২ হাজার ১শ’ কৃষককে ইতোমধ্যে আউশ প্রণোদনা হিসেবে প্রত্যেক কৃষককে ৫ কেজি ধানবীজ, ২০ কেজি ডিএপি, ১০ কেজি এমওপি সার প্রদান করা হয়েছে। এ ছাড়া ৩৫ জন কৃষককে আউশ ধানের প্রদর্শনী দেওয়া হয়েছে। 

উপজেলার সুজাইল গ্রামের কৃষক আব্দুর রহিম, নাটশাল গ্রমের জাহেদুল ইসলামসহ বেশ কয়েকজন কৃষক জানান, ইরি ধানের দাম ভালো পাওয়ায় বেশি জমিতে আউশ ধান রোপণ করেছেন। এখন আউশ ধান চাষের শেষ মুহূর্তের পরিচর্যায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন তারা। এবার বোরো ধানের ভালো দাম পেয়ে আউশ ধান উৎপাদনে কৃষকের উৎসাহ উদ্দীপনা আরও বেড়ে গেছে। এ উপজেলার কৃষকরা চলতি আউশ মৌসুমে ব্যাপক জমিতে আউশ ধান চাষ করেছে। 

এ বিষয়ে উপজেলা কৃষি অফিসার অরুণ চন্দ্র রায় জানান,  চলতি আউশ মৌসুমে শুধুমাত্র মহাদেবপুর উপজেলায় ১৩হাজার ১২০ হেক্টর জমিতে আউশ ধানের চাষ করা হয়েছে। আবহাওয়া অনুকূলে থাকলে এবং বড় ধরনের কোন প্রাকৃতিক দুর্যোগ না দেখা দিলে আউশ ধানের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা রয়েছে। 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়