বগুড়া সদরের দলিল লেখকদের কর্মবিরতিতে সোয়া কোটি টাকার রাজস্ব হারালো সরকার

প্রকাশিত: আগস্ট ০৪, ২০২২, ০৮:১১ রাত
আপডেট: আগস্ট ০৪, ২০২২, ০৮:১১ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

স্টাফ রিপোর্টার: বগুড়া সদর সাব-রেজিস্ট্রারের অপসারণের দাবিতে দলিল লেখকদের গত চারদিনের কর্মবিরতিতে প্রায় সোয়া কোটির রাজস্ব থেকে বঞ্চিত হয়েছে সরকার। অসঙ্গতিপূর্ণ এক দলিল রেজিস্ট্রি না হওয়ার জের ধরে গত সোমবার থেকে এই কর্মবিরতি পালন করছেন দলিল লেখক সমিতি বগুড়া সদর উপজেলার সদস্যবৃন্দ। বগুড়া সদর সাব-রেজিস্ট্রারের অপসারণের দাবিতে আজ বৃহস্পতিবার দুপুরের দিকে জেলা রেজিস্ট্রারের কাছে স্মারকলিপি দেন সমিতির নেতৃবৃন্দ। এদিকে আজ সন্ধ্যায় জেলা রেজিস্ট্রার জানিয়েছেন, উভয় পক্ষের মধ্যে যে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হয়েছিল, তার অবসান হয়েছে। আগামী রোববার থেকে আবারও স্বাভাবিক কাজে ফিরবে সবাই।

দলিল লেখক সমিতি বগুড়া সদর উপজেলার সাধারণ সম্পাদক জহুরুল ইসলাম টুকু বলেন, ২০২০ সালের ১৬ নভেম্বর এই অফিসে যোগদানের পর থেকেই এই সাব-রেজিস্ট্রার দলিল লেখক সমিতির সদস্যদের সাথে অসদাচরণ করে আসছেন। বিভিন্ন সময় বিষয়টি নিয়ে তার সাথে কথা বললে এমন আর হবে না জানিয়ে বিষয়গুলো সমাধান করা হয়। তবে তার অসদাচরণ বর্তমানে হুমকিতে রূপ নিয়েছে। তিনি আরও বলেন, সাব-রেজিস্ট্রার বিভিন্ন দলিল লেখকের দলিল পায়ের নিচে রাখাসহ বিভিন্ন সময় তা ছুঁড়ে ফেলে দেন, অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন এবং দলিল লেখকদের লাইসেন্স বাতিলের হুমকি দিয়ে আসছেন। তাদের কর্মবিরতির ফলে সরকারের প্রায় সোয়া কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে। এই দায় স্বীকার করে এই নেতা বলেন, এই সাব-রেজিস্ট্রার অপসারণ হলেই কেবল তারা দলিল সম্পাদন কাজে হাত দিবেন।

এদিকে দলিল লেখকদের অভিযোগ সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন দাবি করে সদর উপজেলা সাব-রেজিস্ট্রার মঞ্জুরুল ইসলাম বলেন, তিনি এখানে যোগদানের পর গত দেড় বছরে বিগত যেকোন সময়ের চেয়ে বেশি রাজস্ব আদায় করেছেন। দলিল লেখকদের বিভিন্ন অনিয়ম নিয়ে কথা বলা ও অসঙ্গতিপূর্ণ দলিল রেজিস্ট্রি না করায় তারা কর্মবিরতি পালন করছেন। বিভিন্ন সময় তাদের অনিয়ম ও দলিল লেখায় অসঙ্গতি ধরিয়ে দিলেই তারা আন্দোলনের হুমকি দিয়ে আসছিল। প্রতিদিন ৮০/৮৫টি দলিল সম্পাদন হয় জানিয়ে এই কর্মকর্তা বলেন, গত চারদিনে দলিল লেখকদের কর্মবিরতিতের সরকারের প্রায় সোয়া কোটি টাকার রাজস্ব ক্ষতি হয়েছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে জেলা রেজিস্ট্রার রফিকুল ইসলাম বলেন, বগুড়া সদর সাব-রেজিস্ট্রারের সাথে দলিল লেখকদের সাময়িক ভুল বোঝাবুঝি হয়েছিল। সেই ভুল বোঝাবুঝির অবসান হয়েছে, আগামী রোববার থেকে দলিল রেজিস্ট্রি কার্যক্রম স্বাভাবিক গতিতেই চলবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়