রাজশাহীতে জুলাই মাসে পঁয়ত্রিশ নারী-শিশু নির্যাতনের শিকার

প্রকাশিত: আগস্ট ০২, ২০২২, ০৮:০৯ রাত
আপডেট: আগস্ট ০২, ২০২২, ০৮:০৯ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

রাজশাহী প্রতিনিধি: রাজশাহীতে গেল জুলাই মাসে ৩৫জন নারী-শিশু নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। রাজশাহী ভিত্তিক বেসরকারি সংস্থা লেডিস অর্গানাইজেশন ফর সোসাল ওয়েলফেয়ার (লফস) আজ মঙ্গলবার এ তথ্য প্রকাশ করেছে। লফস এর প্রোগ্রাম অফিসার চম্পা খাতুনের পাঠানো এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, মানবাধিকার সংগঠন হিসেবে লফস তাদের ডকুমেন্টেশন সেল থেকে বিভিন্ন দৈনিক পত্রিকার সংবাদের ভিত্তিতে নারী ও শিশু নির্যাতনের পরিস্থিতি প্রকাশ করে। লফস সূত্র জানায়, রাজশাহী অঞ্চলে নারী ও শিশু নির্যাতন পরিস্থিতি বিভিন্ন মাত্রায় অবনতি ঘটছে। যৌতুক ও পরকীয়ার কারণে অধিকাংশ নারী ও শিশু নির্যাতনের ঘটনা ঘটছে। অনেক ক্ষেত্রে বিদেশি টিভি সিরিয়াল ও পরকিয়াকে উৎসাহিত করছে। এছাড়াও পারিবারিক কলহ ও প্রেমঘটিত কারণে হত্যা-আত্মহত্যা ও অমানবিক নির্যাতনের মতো ঘটনা ঘটছে।

বিজ্ঞপ্তিতে লফস জুলাই মাসের অমানবিক কিছু ঘটে যাওয়া ঘটনার চিত্র তুুলে ধরে। এগুলোর মধ্য উল্লেখযোগ্য হলো- তানোর উপজেলায় এক কিশোরী বধূকে ধর্ষণ, মোহনপুর উপজেলার বাকশিমাইল ইউনিয়নের ভাতুড়িয়া গ্রামের ছাত্রী সুরাইয়া খাতুর (১৮) ও বাগমারা উপজেলার হামিরকুৎসা ইউনিয়নের আলোকনগর গ্রামের সুরাইয়া আক্তার ফেমির (১২) রহস্যজনক নিখোঁজ, মহানগরীতে ছুরিকাঘাত করে একটি হত্যা, বাঘা উপজেলার চকছাতারী গ্রামে একজনকে হত্যার পর পদ্মা নদীকে ফেলে দেওয়ার অভিযোগ, দুর্গাপুর পৌরসভার সিংগা প্রামে মেহেদী হাসান (১৭) নামে কিশোরের আত্মহত্যা, পুঠিয়া উপজেলার ভালুকাগাছি ইউনিয়নের খামারপাড়া গ্রামে প্রতিবেশী ভাতিজিকে (৮) যৌন হয়রানির চেষ্টা, একই উজেলার খালিশাকুড়ি গ্রামে পারিবারিক কলহের জেরে রাইশা খাতুন (৫) নামে এক শিশুকে বিষাক্ত খাবার খাওয়ানোর অভিযোগ, কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় আহত দুই স্কুল ছাত্র খুন ইত্যাদি।

এছাড়া রাজশাহীতে ৪ স্কুল ছাত্রীকে যৌন কাজে ব্যবহারের জন্য পাচারের উদ্দেশ্যে ঢাকা নিয়ে যাওয়ায় অভিযোগ, নগরীর লক্ষ্মীপুর উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের হরিজন সম্প্রদায়ের এক ছাত্রীকে নির্যাতন, আমেনা বেগম (৫০) নামে এক নারীকে শ্বাসরোধ করে হত্যা, পবা উপজেলার পারিলা ইউনিয়নে গেরেজান বেগম (৭৫) নামে এক নারীকে গলা কেটে হত্যা, নগরীর মতিহার থানাধীন বামনশিখর উত্তর পাড়া এলাকার গোলেজান বিবিকে (৬৫) গলাকেটে হত্যা উল্লেখযোগ্য।

লফসের নির্বাহী পরিচালক শাহানাজ পারভীন বলেন, সংবাদপত্রে প্রকাশিত ঘটনার বাইরেও অনেক ঘটনা ঘটে যা প্রকাশিত হয় না বা কোন তথ্য জানা যায় না। এমন বাস্তবতায় রাজশাহীতে নারী ও শিশু নির্যাতনের প্রকাশিত তথ্য হতাশাজনক। প্রতিনিয়তি বিভিন্ন কৌশলে সারাদেশের মতো রাজশাহী অঞ্চলে নারী ও শিশু নির্যাতনসহ সার্বিক ঘটনাগুলোর সুষ্ঠু তদন্ত ও দায়ীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন।

তিনি আরও বলেন, অপরাধীদের শাস্তি নিশ্চিত করা না গেলে ক্রমশই অপরাধীরা উৎসাহিত হবে এবং অপরাধের মাত্রা বৃদ্ধি পাবে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়