খুলনায় বিএনপির সমাবেশ

সরকারের বিদায় ঘণ্টা বেজে গেছে : বকুল

প্রকাশিত: জুলাই ৩১, ২০২২, ১০:২৩ রাত
আপডেট: আগস্ট ০১, ২০২২, ০১:৪৪ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

করতোয়া ডেস্ক : একাদশ সংসদ নির্বাচনে খুলনা-৩ আসনের ধানের শীষ প্রতীকের প্রার্থী ও মহানগর বিএনপির সদস্য রকিবুল ইসলাম বকুল বলেছেন, ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের বিদায় ঘণ্টা বেজে গেছে। জনগণ শিগগিরই রাজপথে নেমে এই সরকারের বিদায় ঘটাবে।

আজ রোববার (৩১ জুলাই) বিকেলে খুলনা নগরীর কে.ডি ঘোষ রোডস্থ দলীয় কার্যালয়ের সামনে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে প্রধান বক্তার বক্তব্যে তিনি একথা বলেন। দেশব্যাপী সীমাহীন লোডশেডিং ও জ্বালানিখাতে  অব্যবস্থাপনার প্রতিবাদে কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে খুলনা জেলা বিএনপির উদ্যোগে এই বিক্ষোভ সমাবেশ হয়।

সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তব্যে  বিএনপির কেন্দ্রীয় নির্বাহী কমিটির বিশেষ সম্পাদক ড. আসাদুজ্জামান রিপন বলেন, ক্ষমতাসীনদের দুর্নীতি-লুটপাটের কারণে বিদ্যুৎ ও জ্বালানি তেলের দাম বেড়েছে। নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের সীমাহীন মূল্য বৃদ্ধি পেয়েছে। বাংলাদেশ এখন বিদ্যুৎবিহীন দেশে পরিণত হয়েছে। অথচ সরকারের মন্ত্রী-নেতারা বলেন, হারিকেন নাকি মিউজিয়ামে পাঠিয়ে দিয়েছেন। তাহলে মিউজিয়াম থেকে আবার হারিকেন কীভাবে ফেরত আসলো? কুইক রেন্টালের নামে জনগণের লক্ষ কোটি টাকা পাচার করে দিয়েছে বিদেশে। এ সরকার এখন হায় হায় সরকারে পরিণত হয়েছে। এই সরকার যদি বেশিদিন ক্ষমতায় থাকে, এই দেশটাকে তারা হায় হায় দেশ বানিয়ে ছাড়বে। সুতরাং এদেরকে ক্ষমতা থেকে নামাতে হবে। জনগণের ভোট ও ভাতের অধিকার প্রতিষ্ঠা করতে বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের নেতৃত্বে দুর্বার আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ সরকারের পতন নিশ্চিত করতে হবে।

তিনি বলেন, এই বছরেই গণতান্ত্রিক আন্দোলনের মাধ্যমে এই সরকারের পতন হবে। এখন সরকার কীভাবে বিদায় নেবে তার জন্য সংলাপ চায় বিএনপি।

বিএনপি নেতা রিপন বলেন, শ্রীলঙ্কার সরকার রাতের আঁধারে পালিয়েছে। আমাদের দেশের সরকারি দল কীভাবে পালাবেন? আমরা চাই, এই সরকার শান্তিপূর্ণভাবে বিদায় হোক।

ভোলায় পুলিশের গুলিতে স্বেচ্ছাসেবক দল কর্মী আব্দুর রহিম নিহতের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জ্ঞাপন করে রকিবুল ইসলাম বকুল বলেন, এই খুনের প্রতিশোধ না নিয়ে আমরা ঘরে ফিরে যাব না। যেই সরকার জনগণের উপর গুলিবর্ষণ করা শুরু করে, গুম-খুন-হত্যা, নির্যাতন নিত্য-নৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে যায়- তখনই সেই সরকারের বিদায় ঘন্টা বেজে যায়। আওয়ামী লীগ সরকারেরও পতনের সময় হয়ে গেছে। এখন শুধু দরকার একটিমাত্র ধাক্কা। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান যখনই আন্দোলনের ডাক দিবেন, তখনই আমরা রাজপথে নেমে এই সরকারের পতন নিশ্চিত করব ইনশাআল্লাহ্।

ক্ষমতাসীনদের উদ্দেশে তিনি বলেন, অবিলম্বে পদত্যাগ করে নিরপেক্ষ সরকারের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তর করুন। শ্রীলঙ্কার দিকে তাকান। ইতিহাস থেকে শিক্ষা নিন। অন্যথায় জনগণ রাস্তায় নেমে আপনাদের বিদায় নিশ্চিত করবে। তখন পালাবার পথ কিন্তু খুঁজে পাবেন না। 

খুলনা জেলা বিএনপির আহবায়ক আমীর এজাজ খানের সভাপতিত্বে এবং সদস্য  সচিব এসএম মনিরুল হাসান বাপ্পির পরিচালনায় সমাবেশে বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় সহ-প্রচার সম্পাদক কৃষিবিদ শামীমুর রহমান শামীম, জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য খান রবিউল ইসলাম রবি, খুলনা মহানগর বিএনপির আহবায়ক এ্যাড. শফিকুল আলী মনা ও সদস্য সচিব মোঃ শফিকুল আলম তুহিন।

এছাড়া অন্যদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন জাতীয় নির্বাহী কমিটির সদস্য সাবেক সংসদ সদস্য মোঃ মজিবুর রহমান; নগর ও জেলা বিএনপির নেতা তরিকুল ইসলাম জহীর, শেখ আবু হোসেন বাবু, স ম আব্দুর রহমান, খান জুলফিকার আলী জুলু, সাইফুর রহমান মিন্টু, সৈয়দা রেহেনা ঈসা, এ্যাড. মোমরেজুল ইসলাম, মোল্যা খায়রুল ইসলাম, মোশাররফ হোসেন মফিজ, শেখ তৈয়্যবুর রহমান, এসএম শামীম কবীর, কেএম আশরাফুল আলম নান্নু, একরামুল হক হেলাল, মাসুদ পারভেজ বাবু, খায়রুল ইসলাম খান জনি, এ্যাড. তছলিমা খাতুন ছন্দা, এ্যাড. কানিজ ফাতেমা আমিন, নাজমুল হুদা চৌধুরী সাগর, এবাদুল হক রুবায়েদ, উজ্জল কুমার সাহা, আতাউর রহমান রনু, ইসতিয়াক আহম্মেদ ইশতি, আব্দুল মান্নান মিস্ত্রি, মোল্যা কবির হোসেন, সজীব তালুকদার, অসিত কুমার সাহা, আব্দুল মান্নান খান, মোজাফফর হোসেন ও নূরুল আমীন বাবুল প্রমুখ।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়