নীলফামারীর কিশোরগঞ্জে মাদ্রাসা ছাত্রীকে অপহরণ ও ধর্ষণের অভিযোগে মামলা

প্রকাশিত: মে ১১, ২০২২, ০৮:৫৮ রাত
আপডেট: মে ১১, ২০২২, ০৮:৫৮ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

নীলফামারী প্রতিনিধি: নীলফামারীর কিশোরগঞ্জ উপজেলায় মাদ্রাসার সপ্তম শ্রেণির ছাত্রীকে অপহরণ ও ১৫ দিন আটকিয়ে রেখে পালাক্রমে ধর্ষণ করার অভিযোগে মামলা দায়ের হয়েছে। আজ বুধবার দুপুরে চারজনকে আসামি করে থানায় মামলাটি দায়ের করেন ওই ছাত্রীর বাবা। বর্তমানের ওই মেয়ে রংপুর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।


মামলার অভিযোগে জানা যায়, গত ২৪ এপ্রিল সন্ধ্যায় উপজেলার পুটিমারী ইউনিয়নের কালিকাপুর মাঝাপাড়া গ্রামে বাড়ির পাশে ওই ছাত্রী তার খালার বাড়িতে ইফতার দিয়ে নিজ বাড়িতে ফিরছিল। এসময় পুটিমারী ইউনিয়নের বড়বাড়ি বালাপাড়া গ্রামের জাহিদুল ইসলামের ছেলে মানিক মিয়া ও জলঢাকা উপজেলার টেংগনমারী খুটামারা দীঘলটারী গ্রামের কামরুল ইসলামের ছেলে জীবন ওই ছাত্রীর পথরোধ করে একটি ভুট্টাক্ষেতে নিয়ে গিয়ে ধর্ষণ করে। এরপর চোখ বেঁধে অজ্ঞাত স্থানে একটি ঘরে রাতভর আটকিয়ে রাখে। পরদিন ছাত্রীটিকে রংপুরের সুটিবাড়ীতে নিয়ে একটি ঘরে আটকিয়ে ১৫ দিন ধরে পালাক্রমে রশিদুল, মানিক, জীবন, অজ্ঞাত আরও একজনসহ ধর্ষণ করে।


অপহরণ ও ধর্ষণের শিকার ছাত্রীটি বলেন, সুটিবাড়ীতে ঘরের মালিকের হাত-পা ধরে কোনভাবে সেখান থেকে পালিয়ে রংপুর মেডিকেল মোড়ে আসি। এরপর অন্যদের সহযোগিতায় বাড়িতে পৌঁছলে পরিবারে সদস্যরা আমাকে হাসপাতালে ভর্তি করায়। কিশোরগঞ্জ থানার পরিদর্শক রাজীব কুমার রায় বলেন, অপহরণ ও ধর্ষণ ঘটনায় ছাত্রীটির বাবা বাদি হয়ে চারজনের নামে মামলা দায়ের করেছেন। আসামি গ্রেফতারে অভিযান চলছে।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়