নওগাঁয় হঠাৎ ডায়রিয়ার প্রকোপ হাসপাতালে দ্বিগুণ রোগী ভর্তি

প্রকাশিত: মে ১০, ২০২২, ০৪:৪৯ দুপুর
আপডেট: মে ১০, ২০২২, ০৪:৪৯ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

নওগাঁ প্রতিনিধি: নওগাঁয় হঠাৎ করে ডায়রিয়ার প্রকোপ দেখা দিয়েছে। জেলার প্রধান সরকারি হাসপাতালে ধারণ ক্ষমতার চেয়ে দ্বিগুণ রোগী ভর্তি আছেন। শয্যা খালি না থাকায় মেঝেতেই রেখে রোগীদের সেবা দেওয়া হচ্ছে।

ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগীদের মধ্যে বেশির ভাগই শিশু ও কিশোর। নওগাঁ সদর হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সাথে কথা বলে জানা গেছে, হাসপাতালের শিশু, মহিলা ও পুরুষ ওয়ার্ডে ডায়রিয়া রোগীদের জন্য ১০টি করে মোট ৩০টি শয্যা নির্ধারিত আছে। কিন্তু ঈদের দিন থেকে প্রতিদিন গড়ে ১৫০ জনের বেশি ডায়রিয়া রোগী ভর্তি থাকছেন।

হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সরা বলছেন, তীব্র গরমের কারণে গত এক মাস ধরেই হাসপাতালে শয্যার চেয়ে অধিক সংখ্যক ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। তবে  ঈদের আগের দিন (গত সোমবার) থেকে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়ে গেছে। আগে যেখানে গড়ে ৪৫ থেকে ৫০ জন রোগী চিকিৎসা নিতেন এখন সেখানে প্রতিদিন গড়ে প্রায় ১৫০ জন ডায়রিয়া রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন। তীব্র গরম, খাবারের ক্ষেত্রে অসর্তকতা ও স্বাস্থ্যবিধি মেনে না চলার কারণে ডায়রিয়ার প্রকোপ বেড়েছে বলে মনে করছেন তারা। 

সরেজমিনে দেখা যায়, হাসপাতালের চারতলায় শিশু ওয়ার্ডে ডায়রিয়া রোগীতে ঠাসা। কিন্তু ওয়ার্ডটিতে ডায়রিয়া রোগীর জন্য নির্ধারিত শয্যা সংখ্যা ১০টি। একই চিত্র পাঁচতলায় মহিলা ওয়ার্ড ও ছয়তলায় পুরুষ ওয়ার্ডে। ওয়ার্ডগুলোতে ভর্তি হওয়া প্রায় অর্ধেক রোগীই ডায়রিয়া আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন। শয্যা না থাকায় অধিকাংশ রোগী মেঝেতে বিছানা পেতে ঠাঁই নিয়েছেন। হাসপাতালের শিশু ওয়ার্ডের একজন নার্স বলেন, গত কয়েকদিন ধরে ডায়রিয়া রোগীর সংখ্যা ব্যাপক হারে বেড়েছে। পুরুষ ওয়ার্ডে মেডিসিন, সার্জারী ও কার্ডিওলজী বিভাগে মোট শয্যা সংখ্যা ২৫টি। কিন্তু রোগী ভর্তি আছেন দ্বিগুণ।    

নওগাঁ সদর আধুনিক হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. জাহিদ নজরুল চৌধুরী বলেন, রোগীর চাপ সব সময় থাকে। শয্যা সংকটও থাকে। তবে হঠাৎ করে ডায়রিয়া রোগীর চাপ বেড়ে যাওয়ার কারণে শয্যাসংকট আরও তীব্র হয়েছে। তবে ওষুধ সরবরাহসহ অন্যান্য ক্ষেত্রে হাসপাতালে পর্যাপ্ত চিকিৎসা ব্যবস্থা আছে। রোগীরা এসে চিকিৎসা নিয়ে বাড়ি ফিরে যাচ্ছেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়