সিলেটে হকার্স মার্কেটে পুড়েছে কোটি টাকার পণ্য

প্রকাশিত: মে ০২, ২০২২, ১১:২৭ দুপুর
আপডেট: মে ০২, ২০২২, ১১:২৭ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

সিলেট নগরের লালদীঘি পাড়ের হকার্স মার্কেটে ভয়াবহ আগুনে পুড়ে গেছে কয়েক কোটি টাকার মালামাল। ফায়ার সার্ভিসের ১৭টি ইউনিটের সোয়া দুই ঘণ্টার চেষ্টায় সোমবার (০২ মে) ভোর সাড়ে ৫টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

মার্কেটটিতে ১ হাজার ৩৫টি কাপড়সহ বিভিন্ন নিত্যপণের দোকান ছিল। নিম্ন ও মধ্যবিত্তের মানুষের মার্কেট হিসেবেও পরিচিত এই ঐতিহ্যবাহী হকার্স মার্কেটটি।

রোববার (১ মে) দিনগত রাত ৩টা ১৮ মিনিটে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটে। মুহূর্তের মধ্যে একাধিক গলিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সিলেট মহানগরের সবগুলোসহ পার্শ্ববর্তী উপজেলা জৈন্তাপুর ও গোলাপগঞ্জ থেকেও ফায়ার সার্ভিসের ১৭টি ইউনিট আগুন নেভানোর কাজে যোগ দেয়। ভোর সাড়ে ৫টার দিকে টানা সোয়া ২ ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আসে।

ব্যবসায়ীরা বলছেন, আগুনে মার্কেটের কয়েক কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। এ সময় ব্যবসায়ীদের অনেককেই মার্কেটের বাইরে কাঁদতে দেখা গেছে।

সিলেট ফায়ার সার্ভিস কন্ট্রোল রুমের ডিউটি অফিসার মামুন পারভেজ বলেন, সবচেয়ে বড় এ মার্কেটে রাত ৩টা ১৮ মিনিটের দিকে আগুন লাগে। আগুন নেভাতে ৯টি ইউনিট কাজ করে।

মামুন পারভেজ বলেন, একাধিক গলিতে আগুন ছড়িয়ে পড়ে। এর মধ্যে ৩, ৪, ৫ ও ৬নং গলিতে আগুন লাগে। মার্কেটের ভেতরে ফায়ার সার্ভিসের গাড়ি ঢোকার কোনো রাস্তা না থাকায় আগুন নেভাতে বেগ পেতে হয় ফায়ার সার্ভিসের কর্মীদের।


সিলেট ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের সহকারী পরিচালক শফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া  বলেন, খবর পেয়ে ফায়ার সার্ভিসের সিলেট মহানগর ও আশপাশের ১৭টি ইউনিট আগুন ভোর সাড়ে ৫টার দিকে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে। হকার্স মার্কেটের এক হাজার ৩৫টি দোকানের মধ্যে ২০-২৫টি দোকান পুড়ে গেছে। এর মধ্যে ১০-১২ দোকান পুরোপুরি পুড়ে গেছে। তবে অন্যগুলো আংশিক পুড়েছে। আমরা বড় ধরনের ক্ষতির হাত থেকে মার্কেটটি রক্ষা করেছি।

শফিকুল ইসলাম ভূঁইয়া বলেন, প্রাথমিকভাবে আগুন লাগার কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ জানা যায়নি। তবে বিষয়টি ফার্য়ার সার্ভিসের পক্ষ থেকে তদন্ত করা হচ্ছে। তদন্ত শেষ হলে বিস্তারিত জানা যাবে।

এদিকে আগুনের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান সিলেট সিটি কর্পোরেশনের মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী। আগুন নিয়ন্ত্রণে আনার স্বার্থে প্রয়োজনে মার্কেটের প্রবেশদারের দোকান ভাঙার নির্দেশনা দেন তিনি।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়