উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

গাবতলীতে ধরা ছোঁয়ার বাইরে শহিদুল হত্যা মামলার সব আসামী

প্রকাশিত: জুন ২৩, ২০২২, ০৯:৫১ রাত
আপডেট: জুন ২৩, ২০২২, ০৯:৫১ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

স্টাফ রিপোর্টার: ধরা ছোঁয়ার বাইরে রয়েছে বগুড়ার গাবতলীর আলোচিত শহিদুল হত্যা মামলার সব আসামী। প্রায় একমাস পেরিয়ে গেলেও পুলিশ এ হত্যাকান্ডে জড়িত এজাহারভুক্ত ৯ আসামীর মধ্যে কাউকেই গ্রেফতার করতে পারেনি।

এ দিকে, একমাত্র উপার্জনক্ষম ব্যক্তি শহিদুল ইসলামকে হারিয়ে তার পরিবার দিশেহারা। চরম অভাব অনটনের মধ্য দিয়ে চলছে তার সংসার। শোকে আচ্ছন্ন নিহত শহিদুলের স্ত্রী সালেহা বেগম বলেন, তার স্বামী বগুড়া শহরের কামারগাড়ী এলাকায় নৈশ্য প্রহরীর চাকরী করতেন। মাসে বেতন পেতেন ৬ হাজার টাকা। সেইসাথে তিনি অন্যের বাসায় গৃহকর্মির কাজ করতেন। দু’জনের আয়-রোজগারের টাকা দিয়েই কোন রকমে তাদের সংসার চলতো। কিন্তু শত্রুরা তার স্বামীকে খুন করে ফেললো। সংসারও অচল করে দিল। আমার ছেলে-মেয়েদের এতিম করে দিল। আমি সংসার চালাবো কি করে।

সালেহা বলেন, তার স্বামীকে অন্যায়ভাবে হত্যা করা হয়েছে। তাদের জায়গা-জমি দখল করা হয়েছে। দখলদার প্রতিপক্ষের লোকজন তার স্বামীকে নির্মমভাবে হত্যা করেছে। হত্যাকান্ডের পর তিনি ৯ জনকে আসামী করে মামলা দায়ের করেছেন। এ হত্যাকান্ডের প্রায় এক মাস পার হয়ে গেলেও পুলিশ একজন আসামীকেও গ্রেফতার করতে পারেনি। মামলার তদন্তে কোন অগ্রগতি নেই। আমি এ হত্যার বিচার চাই। আসামীদের গ্রেফতার ও ফাঁসি চাই। তিনি আসামীদের গ্রেফতার করতে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

এ ব্যাপারে গাবতলী মডেল থানার ওসি মো: সিরাজুল ইসলাম বলেন, শহিদুল হত্যা মামলার সব আসামী বাড়ি-ঘর ছেড়ে পালিয়েছে। তাদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে। মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা গাবতলীর বাগবাড়ি তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ ইন্সপেক্টর মো: কামরুজ্জামান বলেন, জায়গা-জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে শহিদুলকে হত্যা করা হয়েছে বলে প্রাথমিক তথ্যে জানা গেছে। এ ব্যাপারে তদন্ত চলছে। আসামীদের ধরতে বিভিন্ন স্থানে অভিযান শুরু করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ২৭ মে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭ টার দিকে, গাবতলী উপজেলার বালিয়াদিঘী ইউনিয়নের কুটা মোবিন গ্রামে লোহার শাবল ও লাঠিসোটা দিয়ে পিটিয়ে শহিদুলকে গুরুতর আহত করা হয়। এরপর তাকে বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হলে পরের ২৮ মে বিকেল সাড়ে ৪ টার দিকে শহিদুল মারা যান।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়