উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

ফরিদপুরে চরে মাছ ধরার নিষিদ্ধ চায়না দোয়ারী. জাল ব্যবহার হচ্ছে

প্রকাশিত: জুন ২২, ২০২২, ০৫:৪৯ বিকাল
আপডেট: জুন ২২, ২০২২, ০৫:৪৯ বিকাল
আমাদেরকে ফলো করুন

ফরিদপুর প্রতিনিধি : ফরিদপুর সদর উপজেলার নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের দুর্গম চরে ৩নং ওয়ার্ডের মনসুরাবাদ ও খলিল মন্ডলের ডাঙ্গীসহ বিভিন্ন এলাকায় সরকারের নিষিদ্ধ ঘোষিত চায়না দোয়ারী, জাল বিক্রি ও সরবরাহ করে আসছে একই এলাকার লুৎফর রহমান সরদার। সে দীর্ঘদিন ধরে দুর্গম চরের ফাকের আলীর বাজারে এই রমরমা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। এতে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে দেশীয় প্রজাতির মাছ। সরেজমিনে দেখা যায়, লুৎফর সরদার, জুলহাস সরদার, পিতা হবি সরদার এবং হবির সরদার নিজে, নিজ বাড়িতে সরকার নিষিদ্ধ-ঘোষিত চায়না মাছ ধরার দোয়ারী জাল তৈরী করে আসছে। এলাকাবাসীরা জানান, এই নিষিদ্ধ দোয়ারী ও জাল পার্শ্ববর্তী জেলার মানিকগঞ্জের বিভিন্ন উপজেলায় সরবরাহ করে থাকে এবং চরের বিভিন্ন খাল, বিল ও নালায় দোয়ারী ও জাল পেতে দেশীয় প্রজাতির মাছ শিকার করছে। লুৎফর সরদার প্রভাবশালী বিধায় এলাকার অনেকেই ভয়ে কথা বলতে সাহস পায় না। এলাকাবাসী প্রশাসনের সুদৃষ্টি দেওয়ার জন্য অনুরোধ জানায়।

এই বিষয়ে নর্থচ্যানেল ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোস্তাকুজ্জামান মোস্তাক জানান, সরকারের নিষিদ্ধ ঘোষিত দোয়ারী, জাল তৈরী ও সরবরাহ বিষয়ে লুৎফর সরদারের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

দুর্গম চরের আজগর, মতিয়ার, মোতালেবগংরা জানান, এ জাল সরবরাহের কারনে আমরা বর্ষা মৌসুমে দেশীয় কোন মাছ ধরতে পারছি না। তারা আরও জানান, চায়না দোয়ারী ও জালের কারণে দেশীয় প্রজাতির মাছ বিলুপ্তির পথে। আমরা দ্রুত এর ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য প্রশাসনকে অনুরোধ করছি। 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়