উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

বাবার দাবি পিটিয়ে হত্যা, শাশুড়ি বলছেন ‘আত্মহত্যা’

প্রকাশিত: জুন ২০, ২০২২, ০৮:০৩ রাত
আপডেট: জুন ২০, ২০২২, ০৮:০৩ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

বরিশাল প্রতিনিধি:বরিশালের গৌরনদী পৌরসভার বড় কসবা এলাকায় স্বর্ণা আক্তার (২০) নামে এক গৃহবধূকে পিটিয়ে হত্যার অভিযোগ করেছেন তার বাবা। তবে স্বর্ণার শাশুড়ির দাবি, গলায় ফাঁস নিয়ে আত্মহত্যা করেছেন স্বর্ণা।

গৌরনদী মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আফজাল হোসেন বলেন, ‘ রোববার (১৯ জুন) দুপুরে লাশ উদ্ধার করে শের-ই-বাংলা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।’

স্বর্ণা বরিশালের টরকী বন্দরের গার্মেন্টস ব্যবসায়ী মাসুম খানের স্ত্রী এবং একই এলাকার শিপন সরদারের মেয়ে।

শিপন সরদার বলেন, ‘দুই বছর আগে জালাল খানের ছেলে মাসুম খানের সঙ্গে আমার মেয়ে স্বর্ণার বিয়ে হয়। এর কয়েক মাস পর থেকেই মাসুম ও তার পরিবারের সদস্যরা যৌতুক দাবি করে আসছিল। এনিয়ে বিভিন্ন সময় স্বর্ণার ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন চালাতো। সর্বশেষ  রোববার সকালে টাকার জন্য তার সঙ্গে বাগবিতন্ডায় জড়ায় মাসুম। একপর্যায়ে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে। অজ্ঞান হয়ে গেলে উপজেলা হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক স্বর্ণাকে মৃত ঘোষণা করেন। পরে লাশ হাসপাতালে রেখে পালিয়ে যায় মাসুম ও তার পরিবারের সদস্যরা।’

তিনি আরও বলেন, ‘স্বর্ণার পিঠে, হাতে ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাকে মারধর করে হত্যার পর ঝুলিয়ে রেখে আত্মহত্যার প্রচারণা চালানো হয়।’

শাশুড়ি রুনু বেগম বলেন, ‘বিয়ের পর স্বর্ণা বিবাহবহির্ভূত সম্পর্কে জড়িয়ে পড়ে। এ নিয়ে মাসুমের সঙ্গে বিরোধ দেখা দেয়। শনিবার রাতে মাসুম তার কাছ থেকে মোবাইল ফোন ছিনিয়ে নেয়। এ নিয়ে তাদের মধ্যে বাগবিতন্ডা হয়। এর জেরে সে গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করে।’

ওসি আফজাল হোসেন বলেন, ‘ময়নাতদন্তের প্রতিবেদন পেলে মৃতুর আসল কারণ জানা যাবে।’

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়