পরীক্ষা না করেই দেয়া হচ্ছে করোনা নেগেটিভ সনদ

Online Desk Aminul Online Desk Aminul
প্রকাশিত: ০৬:৩৫ পিএম, ১৪ জানুয়ারি ২০২২

চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি: চুয়াডাঙ্গার দর্শনা চেকপোস্টে ভারত থেকে আগত যাত্রীদের স্বাস্থ্য পরীক্ষায় অবহেলার অভিযোগ উঠেছে।নমুনা পরীক্ষা না করেও ভারতফেরত যাত্রীদের দেয়া হচ্ছে নেগেটিভ সনদ। বিনিময়ে হাতিয়ে নেয়া হচ্ছে নগদ অর্থ। তাই ভারত থেকে আসা ব্যক্তিদের করোনা পজিটিভ হওয়ার হার বাড়ায় শঙ্কায় সীমান্তবাসী।
চুয়াডাঙ্গার দর্শনা চেকপোস্ট দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার (১৩ জানুয়ারি) দুপুরে ভারত থেকে দেশে আসেন বাংলাদেশি নাগরিক রেখা রানী সাহা। সীমান্ত পেরিয়ে চেকপোস্টে ঢুকেই স্বাস্থ্য বিভাগের হেলথ স্ক্রিনিং বুথে স্বাস্থ্য পরীক্ষার কথা ছিল তার। কিন্তু তা করা হয়নি। রেখা জানালেন, পরীক্ষা ছাড়াই করোনা পরীক্ষার নেগেটিভ সনদ ধরিয়ে দেয়া হয়েছে তাকে। বিনিময়ে নেয়া হয়েছে ১শ টাকা।
পরে স্বাস্থ্য বিভাগের রেজিস্ট্রারে দেখা যায়, তালিকায় রেখা রানী সাহার নামই নেই। তাহলে কীভাবে পেলেন করোনার নেগেটিভ সনদ, প্রশ্ন ছিল দায়িত্বরতদের কাছে। স্বাস্থ্য বিভাগের স্যানেটারি ইন্সপেক্টর জামাত আলী স্বীকার করলেন, অনেক সময় টেস্ট না করেই নেগেটিভ সনদ দিয়ে থাকেন তারা।
বাংলাদেশ সীমানায় ঢুকেই প্রতিজনকে করোনার র‍্যাপিড টেস্ট করানোর কথা। প্রতিজনের কাছ থেকে সে অনুযায়ী নেয়ার কথা ১০০ টাকা। তবে অনেকের কাছ থেকেই টাকা নিয়ে রশিদ দেয়া হয় না বলেও অভিযোগ রয়েছে। আবার টাকা নিয়েও নমুনা পরীক্ষা করা হয় না এমন অভিযোগও রয়েছে।
তবে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মকর্তারা এসব অনিয়ম মানতে নারাজ। চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা আবু হেনা জামাল শুভ বলছেন, দেশত্যাগ বা দেশে ঢোকার সময় করোনা নেগেটিভ সনদ থাকতেই হবে। দেশে ঢুকেও পরীক্ষার যে বিধি, তা মানা হচ্ছে বলেও দাবি তার।
প্রসঙ্গত, চলতি মাসেই ভারতফেরত ২৩ জনের শরীরে করোনা ভাইরাসের উপস্থিতি পাওয়া গেছে। যারা করোনা নেগেটিভ সনদ নিয়ে দেশে ফিরেছিলেন।