মুনিয়ার মৃত্যুর পর ৩টি মামলা দায়ের

OnlineStaff OnlineStaff
প্রকাশিত: ০৮:৩৩ পিএম, ০৮ সেপ্টেম্বর ২০২১

করতোয়া ডেস্ক : মুনিয়ার আত্মহত্যার পর প্রথম মামলাটি দায়ের করেছিলেন তার বড় বোন নুসরাত তানিয়া। এটি ছিল আত্মহত্যা প্ররোচনার মামলা। এরপর মুনিয়ার বড় ভাই আশিকুর রহমান সবুজ মুনিয়ার মৃত্যুকে হত্যাকা- দাবী করে সিএমএম আদালতে একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন। ঐ হত্যা মামলায় প্রধান আসামী করা হয় চট্টগ্রামের হুইপ শামসুল হক চৌধুরীর পুত্র নাজমুল করিম শারুন চৌধুরীকে। মামলার অভিযোগে বলা হয় ‘শারুন তার লোকজনকে দিয়ে গুলশানের ফ্লাটে গিয়ে মুনিয়াকে হত্যা করে।’ মামলার অভিযোগে আরো বলা হয়েছিল যে ‘শারুন মুনিয়ার সংগে প্রেমের অভিনয় করে। মুনিয়া যখন তাকে বিয়ের জন্য চাপ দেয় তখনই শারুন তাকে হত্যার পরিকল্পনা করে। পরবর্তীতে পেশাদার খুনি দিয়ে কৌশলে মুনিয়াকে হত্যা করে।

যেহেতু সে সময়, মুনিয়ার আত্মহত্যার প্ররোচনা মামলাটি তদন্তাধীন ছিলো, তাই এই মামলাটির কার্যক্রম স্থগিত রাখা হয়। গত ১৯ জুলাই মুনিয়ার আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলায় পুলিশ চূড়ান্ত প্রতিবেদন প্রদান করে। ময়না তদন্ত রিপোর্ট এবং অন্যান্য আলামত বিশ্লেষণ ও তদন্ত করে পুলিশ নিশ্চিত হয় যে, ‘আত্মহত্যার কোন প্ররোচনা হয়নি।’ পুলিশের এই চূড়ান্ত প্রতিবেদনের বিরুদ্ধে মুনিয়ার বোন নুসরাত তানিয়া নারাজি দরখাস্ত দেয়। আদালত এব্যাপারে নথিপত্র বিশ্লেষণ করে, নারাজি আবেদনটি নাকচ করে দেয়। ফলে ১৮ আগস্ট আত্মহত্যা প্ররোচনা মামলাটি খারিজ হয়ে যায়। স্বাভাবিকভাবেই, এরপর মুনিয়ার ভাইয়ের মামলাটি তদন্ত হবার কথা। কিন্তু সেটি তদন্ত না করেই নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মুনিয়ার বোন আবার একটি হত্যা ও ধর্ষণের মামলা করেন আদালতে, যা পিবিআইকে তদন্তের জন্য পাঠানো হয়েছে। ফলে প্রশ্ন উঠেছে, মুনিয়ার ভাইয়ের মামলার কি হবে? সেটি কি ধামাচাপা পড়ে যাবে?