যারা ধর্মের নামে তান্ডব চালায় তাদের পাল্টা আঘাত করা হবে  হানিফ

OnlineStaff OnlineStaff
প্রকাশিত: ০৭:৩৫ এএম, ০৮ এপ্রিল ২০২১

সোনারগাঁও (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি : বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব উল আলম হানিফ বলেছেন, হেফাজত ইসলামের নেতাকর্মী সহিংসতায় জড়িত সবাইকে খুঁজে বের করে আইনের আওতায় এনে শাস্তি নিশ্চিত করা হবে। সরকার ইতোমধ্যে সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের বিষয়ে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। প্রত্যেক জেলায় ও উপজেলায় সন্ত্রাসী কর্মকান্ড কঠোরভাবে দমন করতে প্রশাসন সহয়তা করার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। জামায়াত শিবির হোক আর হেফাজত বা বিএনপিই হোক জনগণকে সঙ্গে নিয়ে অপশক্তিকে রোধ করা হবে। হেফাজত ইসলামের এমন তান্ডব অরাজকতা মেনে নেওয়া যায় না। তিনি আরও বলেন, ধর্মের নামে বাংলাদেশের উন্নয়নের অগ্রযাত্রা বাধাগ্রস্ত বরদাশত করা হবে না। তিনি হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, যারা ধর্মের নামে তান্ডব চালায় তাদের আঘাতের পাল্টা আঘাত করা হবে। এ জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রস্তত থাকতে বলেছেন তিনি। কোন অনৈতিক সহিংসতা সরকার বরদাশত করবে না। 

গতকাল বুধবার দুপুরে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে ভাঙচুর হওয়া আওয়ামী লীগের কার্যালয় ও যুবলীগ ও ছাত্রলীগের দুই নেতার বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান পরিদর্শন শেষে মোগরাপাড়া চৌরাস্তা এলাকায় মদিনা টাওয়ারে একটি রেস্তোরাঁয় সংবাদ সম্মেলন করে তিনি এসব কথা বলেন। মাহবুব উল আলম হানিফ বলেন, মামুনুল হকের ঘটনাকে কেন্দ্র করে যারা আওয়ামী লীগের কার্যালয়সহ বিভিন্ন স্থানে হামলা ভাঙচুর চালিয়েছে তারা রেহাই পাবে না। হামলাকারীদের তালিকা করার জন্য তিনি দলীয় নেতাকর্মীদের তিনি নির্দেশ দিয়েছেন। 

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক কৃষিবিদ আ ফ ম বাহাউদ্দিন নাছিম বলেছেন, স্বাধীনতা বিরোধী, দেশবিরোধী। যারা বাংলাদেশ ও স্বাধীনতাকে মেনে নিতে পারেনি তারাই এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। দেশ বিরোধীরা পুলিশ বাহিনীকেও টার্গেট করেছে। তিনি আরও বলেন, বাংলাদেশকে কোনভাবেই অপশক্তির হাতে ছেড়ে দিতে পারি না। 
প্রতিনিধি দলে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি, দপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক মৃনাল কান্তি দাস, নারায়ণগঞ্জ-৪ আসনের সংসদ সদস্য শামীম ওসমান, নারায়ণগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য নজরুল ইসলাম বাবু, নারায়ণগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আবু হাসনাত শহীদ মো: বাদল, সহ-সভাপতি আব্দুল কাদির, যুগ্ম সম্পাদক ডা: আবু জাফর চৌধুরী বিরু, সোনারগাঁ উপজেলা আওয়ামী লীগের আহবায়ক এডভোকেট সামসুল ইসলাম ভূঁইয়া, যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক সংসদ সদস্য আবদুল্লাহ আল কায়সার, ইঞ্জিনিয়ার মাসুদুর রহমান মাসুম, জাতীয় শ্রমিক লীগের ট্রেড ইউনিয়নের সমন্বয়ক বিষয়ক সম্পাদক ও শ্রম আদালত ঢাকা-৩ এর সদস্য ফিরোজ হোসাইন, আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক উপ- সম্পাদক এএইচ এম মাসুদ দুলাল প্রমুখ। 

উল্লেখ্য গত শনিবার সোনারগাঁওয়ের রয়াল রিসোর্টে হেফাজতের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক স্ত্রীসহ লাঞ্ছিত ও অবরুদ্ধ থাকার খবরে হেফাজত কর্মীরা তাকে উদ্ধারে সোনারগাঁও আওয়ামী কার্যালয়, যুবলীগ ও ছাত্রলীগ নেতার বাড়ি, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও রয়াল রিসোর্টে ভাঙচুর চালায়। এরই প্রেক্ষিতে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির একটি প্রতিনিধি দল মাহবুব উল আলম হানিফের নেতৃত্বে সোনারগাঁও পরিদর্শনে আসেন।