রূপগঞ্জে সৎ মাকে জবাই করে হত্যা, ছেলের আত্মসমর্পণ

Staff Reporter Staff Reporter
প্রকাশিত: ০৮:৫২ পিএম, ১৩ জানুয়ারি ২০২১

রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) প্রতিনিধি : নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জে এবার সৎ মাকে জবাই করে হত্যা করেছে পাষন্ড ছেলে। হত্যার পর ছেলে রূপগঞ্জ থানায় এসে আত্মসমর্পণ করে। পারিবারিক কলহের জের ধরেই সেলিনা আক্তার (৪০) নামে মানসিক প্রতিবন্ধী সৎ মাকে তার ছেলে আমির হোসেন জবাই করে হত্যা করে। গতকাল বুধবার সকালে সে থানায় এসে পুলিশের কাছে আত্মসমর্পণ করে। গত মঙ্গলবার রাতে উপজেলার ভুলতা ইউনিয়নের লাভরাপাড়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সেলিনা আক্তার আড়াইহাজার উপজেলার লষ্করদি এলাকার তাহের আলীর মেয়ে।

জানা যায়, প্রথম স্ত্রী মারা যাওয়ার পর তিন বছর আগে উপজেলার লাভরাপাড়া এলাকার নুরু মিয়ার সঙ্গে সেলিনা আক্তারের বিয়ে হয়। বিয়ের পর জানা যায় সেলিনা আক্তার মানসিক প্রতিবন্ধী। নুরু মিয়ার আগের সংসারের ছোট ছেলে আমির হোসেনের স্ত্রী বিথী আক্তারের সঙ্গে সৎ মা সেলিনা আক্তারের প্রায় সময় বাকবিতন্ডা হত। গত সোমবার স্ত্রী বিথী আক্তার তার সৎ শাশুড়ির সঙ্গে চুলায় রান্না করা ও বিছানায় প্রশ্রাব করা নিয়ে বাকবিতন্ডা করে তার বাবার বাড়ি চলে যায়। গত মঙ্গলবার রাতে বাবা নুরু অনুপস্থিতিতে সৎ মা সেলিনা আক্তারের সঙ্গে ছোট ছেলে আমির হোসেনের পারিবারিক বিষয় নিয়ে কথাকাটাকাটি হয়। কথাকাটাকাটির একপর্যায়ে সেলিনা আক্তার ছুরি নিয়ে ছেলের দিকে তেড়ে যান। এ সময় আমির হোসেন সৎ মা’র হাত থেকে ছুরি কেড়ে নিয়ে জবাই করে হত্যা করে।

খবর পেয়ে রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এ সময় আমির হোসেন পলাতক ছিল। তবে গতকাল সকালে সে বীরদর্পে রূপগঞ্জ থানায় উপস্থিত হয়ে পুলিশের কাছে আত্মসমপর্ণ করে। রূপগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মাহমুদুল হাসান বলেন, আমির হোসেন থানায় এসে আত্মসমপর্ণ করেছে। সে হত্যাকান্ডের কথা স্বীকার করেছে। এ ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।