দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ তরুণ পেইসার কাজী অনিক

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৪:০৯ পিএম, ২৭ জুলাই ২০২০

অনলাইন ডেস্কঃ যুব বিশ্বকাপে ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার গতিতে বল করে বেশ হৈচৈ ফেলে দিয়েছিলেন বাংলাদেশি তরুণ পেসার কাজী অনিক ইসলাম। পরে জানা যায় যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে এমনটা ভুলে দেখানো হয়েছিল। তবে বেশ সম্ভাবনা নিয়েই ক্রিকেট অঙ্গনে এসেছিলেন এ তরুণ। কিন্তু নিষিদ্ধ বস্তু সেবনের কারণে সব ধরনের ক্রিকেট থেকে তাকে দুই বছরের জন্য নিষিদ্ধ করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)।

ডোপ টেস্টে পজিটিভ হওয়ায় অনিককে শাস্তি দিয়েছে বিসিবি। রোববার রাতে এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছে বিসিবি। তার শরীরে মেথামফেটামিন নামক এক ধরনের ওষুধের উপস্থিতি ধরা পড়ে। বিসিবির অনুচ্ছেদ ৮.৩ নম্বর ধারা ভঙ্গ করায় এ শাস্তি পান অনিক। আর নিজেও দোষ স্বীকার করে এ শাস্তি মেনে নিয়েছেন এ তরুণ। ফলে কোনো ধরণের ক্রিকেটীয় কর্মকাণ্ডে অংশ নিতে পারবেন না তিনি।

২০১৮ সালে জাতীয় লিগে খেলার সময় কর্তৃপক্ষের নজরে আসেন অনিক। শেখ কামাল স্টেডিয়ামে চট্রগ্রাম বিভাগের বিপক্ষে ম্যাচে ডোপ পরীক্ষা দিতে হয় ঢাকা মেট্রোর এই পেইসারকে। টেস্টে পজিটিভের পর দোষ স্বীকার করেন অনিক। ২০১৯ সালের ৮ ফেব্রুয়ারি থেকে কার্যকর হয়েছে এই নিষেধাজ্ঞা। প্রতিদ্বন্দ্বিতামূলক ক্রিকেটে ফিরতে অপেক্ষা করতে হবে ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত।

নিষেধাজ্ঞার আগে প্রথম শ্রেণির ক্রিকেটে মাত্র চার ম্যাচে ১৫ উইকেট নেন তরুণ এই পেইসার। লিস্ট 'এ' ক্রিকেটে ২৬ ম্যাচে শিকার করেন ৪১ উইকেট।


আরও পড়ুন