বিশ্বকাপে ডাচদের বড় ব্যবধানে হারাল আয়ারল্যান্ড

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৭:১৫ পিএম, ১৮ অক্টোবর ২০২১

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্বে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ৭ উইকেটের বড় জয় পেয়েছে আয়ারল্যান্ড। ডাচদের ১০৭ রানের টার্গেট ৩ উইকেট হারিয়ে এবং ২৯ বল হাতে রেখেই টপকে যায় আইরিশরা।

এ জয়ের ফলে (+) ১.৭৬ রানরেট নিয়ে 'এ' গ্রুপে টেবিলের শীর্ষে উঠেছে আয়ারল্যান্ড। নেদারল্যান্ডসের রানরেট (-) ১.৭৬।

আবুধাবি ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ডাচদের ১০৬ রানের জবাবে আয়ারল্যান্ডের ইনিংস উদ্বোধন করতে নামেন পল স্টার্লিং ও কেভিন ও'ব্রায়েন। ব্রায়েন ৯ রানে ফিরে গেলেও স্টার্লিং দলকে জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন। মাঝে অ্যান্ড্রু বালবার্নি আউট হন ৮ রান করে। এরপর গ্যারেথ ডেলানিকে নিয়ে ৫৯ রানের জুটি গড়েন স্টার্লিং। হাফসেঞ্চুরি থেকে ৬ রান দূরে থাকতে আউট হন ডেলানি। ২৯ বলে খেলা তার ইনিংসে ছিল ৫টি চার ও ২টি ছয়ের মার। নেদারল্যান্ডসের হয়ে একটি করে উইকেট নেন ক্লাসেন, ব্রেন্ডন ও পিটার সিলার।

এর আগে কার্টিস কাম্পারের হ্যাটট্রিকে নেদারল্যান্ডসকে নির্ধারিত ২০ ওভারে ১০৬ রানে আটকে ফেলে আয়ারল্যান্ড। এক রানের মাথাতেই বেন কুপারের উইকেট হারিয়ে ফেলে নেদারল্যান্ডস। রান আউটের শিকার হয়ে প্যাভিলিয়নে ফেরেন কুপার। এরপর ম্যাক্স ও'দাউদকে বেশিক্ষণ সঙ্গ দিতে পারেননি বাস ডি লিডও। ব্যক্তিগত ৭ রানে জশুয়া লিটলের শিকারে পরিণত হন লিড।

কলিন অ্যাকারম্যানকে নিয়ে ধীরে ধীরে এগুতে থাকেন দাউদ। তবে ভাগ্য সহায় না থাকলে যা হয় আরকি! ইনিংসের দশম ওভারে বল হাতে তুলে নেন কার্টিস কাম্পার। প্রথম বলটিই ওয়াইড দেন তিনি। পরের বলে তার কাছ থেকে কোনো রান তুলতে পারেনি ডাচরা। পরের বলেই কাম্পার তুলে নেন কলিন অ্যাকারম্যানের উইকেট। শর্ট লেগে কাম্পারকে খেলতে গিয়ে নেইল রককে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন অ্যাকারম্যান। আইরিশ বোলার এলবিডব্লিউর ফাঁদে ফেলেন রায়ান টেন ডেসকাটকে। ওভারের শেষ দুই বলেও আরও দুটি উইকেট পান কাম্পার। এর মধ্যে স্কট এডওয়ার্ড এলবিডব্লিউর শিকার হওয়ার পর ফন ডার সরাসরি বোল্ড আউট হন। আইরিশদের দলীয় সংগ্রহ তখনও পঞ্চাশের ঘরে। তাতে ডাচদের ইনিংস অনেকটা থমকে যায়।

যদিও শেষ দিকে পিটার সিলার ও ফন বিকের কল্যাণে একশোর কোটা পার হতে সক্ষম হয় নেদারল্যান্ডস। সিলার ২৯ বলে ২১ ও বিক ১১ বলে ১০ রান করে আউট হন। শেষ দুই ব্যাটার কোনো রানই তুলতে পারেননি। আয়ারল্যান্ডের হয়ে ২৬ রান খরচায় ৪ উইকেট পান কাম্পার। তিনটি উইকেট নেন মার্ক এডায়ার।


আরও পড়ুন