টাইগারদের নিউজিল্যান্ড সফরে টেস্টের সঙ্গে যোগ হলো টি-টোয়েন্টি সিরিজও

Online Desk Saju Online Desk Saju
প্রকাশিত: ০৬:২৪ পিএম, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২১

আইসিসি ফিউচার ট্যুর প্রোগ্রাম এফটিপি অনুযায়ী এ বছরের ডিসেম্বরে দুই ম্যাচ সিরিজের টেস্ট খেলতে নিউজিল্যান্ডে যাবার কথা রয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের। দুই বোর্ডের আলোচনা সাপেক্ষে দ্বিপাক্ষিক সিরিজে বাড়তি তিনটি টি-টোয়েন্টি ম্যাচ যোগ করে সিরিজ চূড়ান্ত করেছে নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট। তার আগে জিম্বাবুয়ে সফরে যাবে বাংলাদেশ নারী দল।

আইসিসির এফটিপি ট্যুর অনুসারে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ডের ওই সিরিজ মাঠে গড়াবে ডিসেম্বর-জানুয়ারি মাসে। করোনার এ সময়ে নিউজিল্যান্ডের নিয়ম অনুযায়ী বাংলাদেশ বহরে সর্বোচ্চ ৩৫ জন থাকতে পারবেন। ক্রিকইনফোর ইক প্রতিবেদনে বিষয়টি উল্লেখ করা হয়েছে।

জিম্বাবুয়েতে বাংলাদেশ নারী দলের সফর আগামী নভেম্বর মাসে। রোডেশীয়দের দেশে তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলবে টাইগ্রেসরা। এরপর দশ দলের বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে অংশ নিতে বায়োবাবলে প্রবেশ করবে তারা। জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে বাংলাদেশ নারী দলের এই সফরটি হবে ২০২০ সালের ফেব্রুয়ারি-মার্চের পর প্রথম কোনো সফর।

বিসিবির নারী ক্রিকেট উইংয়ের প্রধান শফিউল আলম চৌধুরী বলেন, 'জিম্বাবুয়ে ও বাংলাদেশ ক্রিকেট এই সিরিজ আয়োজনের বিষয়ে কথা বলেছে। সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়েছে যে,  বিশ্বকাপ বাছাইকে সামনে রেখে এই সফরে তিনটি ওয়ানডে ম্যাচ খেলা হবে। শুধু ওয়ানডে খেলার কারণ হলো বিশ্বকাপ বাছাইও এই ফরম্যাটে। এই সিদ্ধান্ত বিশ্বকাপের বাছাইয়ে আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ প্রস্তুতি হতে পারে।'

২০২০ বিশ্বকাপের গ্রুপ পর্ব থেকে বিদায় নেওয়ার পর বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক পর্যায়ে কোনো ম্যাচই খেলেনি, একমাত্র সিলেটে দক্ষিণ আফ্রিকা ইমার্জিং দলের বিপক্ষে পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজটি বাদ দিলে। তাও সেই সিরিজ সম্পূর্ণ না করেই প্রোটিয়ারা দেশে চলে যায়, কারণ করোনার প্রকোপে তখন দেশ উত্তাল ছিল। দেরি করলে ফেরার জটিলতায় পড়ার সম্ভাবনাও ছিল তাদের। 

প্রায় ১৮ মাস আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে দূরে বাংলাদেশ। এ সম্পর্কে শফিউল আলম বলেন, 'আমরা নারী দলের জনয আমরা ট্যুর আয়োজনের চেষ্টা করে আসছিলাম। কিন্তু সেই চেষ্টাগুলোকে বাস্তবায়িত করতে পারিনি। এর পেছনে সবচেয়ে বড় বাধা ছিল করোনাভাইরাস।'


আরও পড়ুন