যুবদল কোনো অবস্থাতেই মাঠ ছাড়বে না : মোনায়েম মুন্না

প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২, ০১:০৫ রাত
আপডেট: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২২, ০১:০৫ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে বিএনপির চলমান আন্দোলন সফলে নেতাকর্মীদের ওপর হামলা-মামলা সত্ত্বেও জাতীয়তাবাদী যুবদল কোনো অবস্থাতেই মাঠ ছেড়ে যাবে না বলে জানিয়েছেন সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মোনায়েম মুন্না। 

তিনি বলেছেন, বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করে চলমান আন্দোলনকে স্তব্ধ করে দিতে চায় আওয়ামী লীগ। কিন্তু আমরা কোনো অবস্থাতেই ভীত হয়ে মাঠ ছাড়ব না। যুবদল কখনও মাঠ ছাড়বে না। এই সরকারকে বিদায় করেই আমরা ঘরে ফিরব। 

যুবদলের সাবেক সভাপতি বরকত উল্লাহ বুলুর ওপর ক্ষমতাসীনদের হামলার প্রসঙ্গ টেনে আজ মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীতে এক সমাবেশে এসব কথা বলেন মুন্না। জ্বালানি তেলসহ নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধি এবং ভোলায় নুরে আলম, আব্দুর রহিম ও নারায়ণগঞ্জে শাওন প্রধান হত্যাসহ পল্লবীসহ সারাদেশে সন্ত্রাসী হামলার প্রতিবাদে খিলগাঁও জোড় পুকুর মাঠের সামনে ঢাকা মহানগর দক্ষিণের জোন-২ খিলগাঁও, সবুজবাগ ও মুগদা থানা বিএনপির যৌথ উদ্যোগে এই সমাবেশ হয়। 

মোনায়েম মুন্না বলেন, কুমিল্লায় গত শনিবার যুবদলের সাবেক সভাপতি বরকত উল্লাহ বুলুর ওপর ক্ষমতাসীনরা অত্যন্ত ন্যাক্কারজনকভাবে হামলা করেছে। তার সহধর্মিণীর ওপরও হামলা করা হয়েছে। যুবদল এই হামলা কখনও মেনে নেবে না। আমি এই হামলার ঘটনার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং এর সুষ্ঠু বিচার দাবি করছি। 

যুবদলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, বরকত উল্লাহ বুলুসহ নেতাকর্মীদের ওপর হামলা এবং নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদে সারাদেশে আমাদের কর্মসূচি চলছে। আপনারা মাঠে থেকে এই কর্মসূচি সফল করবেন। 

যুবদল সাধারণ সম্পাদক মুন্না বলেন, আওয়ামী লীগ এই ঘটনার (বুলুসহ নেতাদের ওপর হামলা) মাধ্যমে আমাদেরকে একটি মেসেজ দিতে চায়। আওয়ামী লীগকে বলে দিতে চাই, আপনাদের এই হামলায় আমরা কোনো অবস্থাতেই ভীত হয়ে মাঠ ছাড়ব না, যুবদল কখনও মাঠ ছাড়বে না। এই হামলার ঘটনার সমুচিত ও কঠিন জবাব দিয়েই আমরা মাঠে থাকব ইনশাল্লাহ।

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এতে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ বিএনপির যুগ্ম-আহ্বায়ক ইউনুস মৃধার সভাপতিত্বে সমাবেশে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য মির্জা আব্বাস, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য  আমান উল্লাহ আমান, আবদুস সালাম আবুল খায়ের ভুঁইয়া, কেন্দ্রীয় নেতা আবদুস সালাম আজাদ, শহিদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি, কামরুজ্জামান রতন, মীর সরফত আলী সপু, শিরিন সুলতানা, মহানগর দক্ষিণের রফিকুল আলম মজনু, ইশরাক হোসেন, হাবিবুর রশিদ হাবিব, মোশাররফ হোসেন খোকন, লিটন মাহমুদ, যুবদলের সুলতান সালাউদ্দিন টুকু, মুক্তিযোদ্ধা দলের সাদেক আহমেদ খান, স্বেচ্ছাসেবক দলের এস কে জিলানী, রাজীব আহসান, শ্রমিক দলের মোস্তাফিজুল করীম মজুমদারসহ মহানগরের নেতারা বক্তব্য রাখেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়