অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে নির্বাচন চায় সাত দল

প্রকাশিত: মে ১০, ২০২২, ০৯:৩৩ রাত
আপডেট: মে ১০, ২০২২, ০৯:৩৪ রাত
আমাদেরকে ফলো করুন

স্টাফ রিপোর্টার, ঢাকা অফিস : নির্বাচনকালীন সরকার হিসেবে ‘অন্তর্বর্তী সরকার’ এবং তাদের অধীনে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন চায় ৭ দল। একইসঙ্গে বর্তমান আওয়ামী লীগ সরকারের দ্রুত পদত্যাগও দাবি করেছে দলগুলো। তবে সরকার পদত্যাগ না করলে আন্দোলনে তাদের পদত্যাগে বাধ্য করবে। কিন্তু ক্ষমতাসীন সরকারের অধীনে তারা কোনো নির্বাচনে যাবে না। 

আজ মঙ্গলবার (১০ মে) অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে সাত দলের শীর্ষ নেতারা এ বিষয়ে পুনরায় ঐকমত্য পোষণ করেছেন। রাজধানীর হাতিরপুলে গণসংহতি আন্দোলনের কার্যালয়ে সকাল থেকে বিকেল চারটা পর্যন্ত সাত দলের শীর্ষ নেতারা বৈঠক করেন। তারা বৈঠকে নতুন রাজনৈতিক মঞ্চের নাম নির্ধারণ, কর্মসূচি প্রণয়ন, অন্য দলের জোটে অন্তর্ভুক্তিকরণসহ বিভিন্ন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করেন। 

বৈঠকে ভাসানী অনুসারী পরিষদের চেয়ারম্যান ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু, জেএসডির সভাপতি আসম আব্দুর রব, নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না, বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক, গণঅধিকার পরিষদের আহ্বায়ক রেজা কিবরিয়া ও সদস্য সচিব নূরুল হক নূর, গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের হাসনাত কাইয়ুম প্রমুখ অংশগ্রহণ করেন বলে জানা গেছে। 

বৈঠক সূত্র জানায়, আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন সামনে রেখে নতুন ও বৃহত্তর রাজনৈতিক মঞ্চ গড়ে তোলার প্রক্রিয়া শুরু করেছে সাত দল ও সংগঠন। গত ২৮ এপ্রিল রাজধানীর গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে প্রথম বৈঠকে বসেন সাত দলের শীর্ষ নেতারা। তবে এ প্রক্রিয়াকে রাজনৈতিক জোট হিসেবে বিবেচনা না করে সাত দলের নতুন ‘রাজনৈতিক মঞ্চ’ হিসেবে দেখছেন সংশ্লিষ্টরা। ইতোমধ্যে এই রাজনৈতিক মঞ্চের একটি নামও ঠিক করা হয়েছে, যা সংবাদ সম্মেলনের মাধ্যমে শিগগিরই প্রকাশ করা হবে। দুই সপ্তাহ পরে তারা আবার বৈঠকে বসবেন। সাত দল ও সংগঠনের সমন্বয়ে নতুন রাজনৈতিক মঞ্চ গঠনের প্রক্রিয়া এগিয়ে চললেও সংশ্লিষ্টরা চান গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সরকারবিরোধী সমমনা অন্য রাজনৈতিক দলগুলোও তাদের সাথে আসুক। 

জানতে চাইলে ভাসানী অনুসারী পরিষদের মহাসচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বাবলু দৈনিক করতোয়াকে বলেন, বর্তমান সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচন সম্ভব নয়। সে কারণে আমরা বর্তমান সরকারের পদত্যাগ এবং একটি অন্তর্বর্তীকালীন সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের পরিবেশ নিশ্চিত করে আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচন অনুষ্ঠানের দাবি করছি। নির্বাচন ও শাসনতন্ত্র প্রশ্নে ন্যূনতম কর্মসূচির বিষয়ে আলোচনা চলছে। আগামী বৈঠকে এই কর্মসূচি নিয়ে আবারও আলোচনা হবে। মঞ্চের নাম ও কাঠামো এবং অন্যদের সংযুক্তি বিষয়েও আলোচনা চলছে। পরবর্তী বৈঠকে রাজপথের কর্মসূচি বিষয়ে আলোচনা হবে। এই মঞ্চ সরকারের বিদায়ের লক্ষ্যে গণআন্দোলন এবং জনগণের বৃহত্তর ঐক্য গড়ে তুলতে সচেষ্ট থাকবে বলে জানান তিনি।

 

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়