উদ্বোধনের আর মাত্র
০০
দিন
০০
ঘণ্টা
০০
মিনিট
০০
সেকেন্ড

মূল্যবৃদ্ধিরও বড় মূল্য দিচ্ছেন পারভিনরা

প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২২, ০১:৪৮ দুপুর
আপডেট: জুন ২১, ২০২২, ০৪:২৯ দুপুর
আমাদেরকে ফলো করুন

কারওয়ান বাজারে সবজি বাছাইয়ের কাজ করতেন পারভিন বেগম। এই বাজারেরই পাশের তেজকুনিপাড়ার খানকার গলিতে থাকেন তিনি। গত ফেব্রুয়ারিতে কোমরের প্রচণ্ড ব্যথা নিয়ে চিকিৎসকের কাছে যেতে বাধ্য হন। চিকিৎসক তাঁকে কিছু ওষুধ দিয়ে জানান, এভাবে আর বসে থেকে কাজ করা যাবে না। অন্তত ছয় মাস কাজের বাইরে থাকতে হবে। পারভিনও আর পারছিলেন না। শেষ পর্যন্ত কাজ ছেড়ে দেন। স্বামী, মেয়ে আর নাতি নিয়ে তাঁর চারজনের সংসার। স্বামী রাজমিস্ত্রি, মেয়েটি একটি বাসায় কাজ করে। স্বামী ও মেয়ের আয়ের সঙ্গে তাঁরটা মিলিয়ে অভাবের সংসার মোটামুটি চলে যেত। কাজ ছেড়ে দেওয়ার পর কিছু সীমাবদ্ধতার মধ্যেও চলছিল সংসার। তবে গত মাস থেকে চাল, ডাল, তেলসহ সব নিত্যপণ্যের দাম বেড়ে যাওয়ায় পরিবারের খরচ চালানো অসম্ভব হয়ে ওঠে। অগত্যা চিকিৎসকের বিধিনিষেধের পরও বাধ্য হয়ে আবার কাজ শুরু করেছেন।

পারভিন বেগম বলছিলেন, ‘অসুখের কথা চিন্তা কইরলে কি আর অয়। গরিব মানুষ, কষ্ট কইরা অইলেও কাজ তো করতে অইব।’

দুই বছর ধরে করোনার প্রকোপে দেশের অন্তত দুই কোটি মানুষ নতুন করে দরিদ্র হয়েছে, একাধিক গবেষণায় তা পাওয়া গেছে। সেই পরিস্থিতি থেকে একটু উত্তরণ যখন হচ্ছিল, এর মধ্যেই ফেব্রুয়ারি থেকে শুরু হলো রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়তে শুরু করে পণ্যের দাম। এপ্রিল থেকে মে মাসে দফায় দফায় বেড়েছে নিত্যপণ্যের দাম। গত রোববার বাংলাদেশ পরিসংখ্যান ব্যুরো (বিবিএস) মে মাসের সার্বিক মূল্যস্ফীতির হালনাগাদ তথ্য প্রকাশ করেছে। দেখা গেছে, হঠাৎ মূল্যস্ফীতি ৭ শতাংশ পেরিয়ে গেছে। গত মাসে সার্বিক মূল্যস্ফীতি দাঁড়িয়েছে ৭ দশমিক ৪২ শতাংশ। এপ্রিলে এই হার ছিল ৬ দশমিক ২৯ শতাংশ। এক মাসের ব্যবধানে মূল্যস্ফীতির এত বড় উল্লম্ফন গত কয়েক বছরে দেখা যায়নি।

মূল্যস্ফীতি, প্রবৃদ্ধির মতো অর্থনীতির ভারী ভারী শব্দ পারভিন বেগমের মতো মানুষেরা জানেন না। তাঁরা শুধু জানেন বেঁচে থাকার জন্য নিরন্তর লড়াই। এই ভয়াবহ মূল্যবৃদ্ধির বড় অভিঘাত নারীদের ওপরই পড়েছে বেশি। চলতি মাসে বেসরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান পাওয়ার অ্যান্ড পার্টিসিপেশন রিসার্চ সেন্টার (পিপিআরসি) এবং ব্র্যাক ইনস্টিটিউট অব গভর্ন্যান্স স্টাডিজের (বিআইজিডি) গবেষণায় দেখা গেছে, দ্রব্যের মূল্য বেড়ে যাওয়ায় নিম্ন আয়ের নারীরা নতুন করে আবার কর্মক্ষেত্রে ঢোকার চেষ্টা করছেন।

মন্তব্য করুন

খবরের বিষয়বস্তুর সঙ্গে মিল আছে এবং আপত্তিজনক নয়- এমন মন্তব্যই প্রদর্শিত হবে। মন্তব্যগুলো পাঠকের নিজস্ব মতামত, দৈনিক করতোয়া এর দায়ভার নেবে না।

জনপ্রিয়